Home / শিক্ষা / শিক্ষিকার কলমের খোঁচায় অন্ধ, ১৬ বছরের ‘নষ্ট জীবন’ সামলাতে সরকারি চাকরি চান ছাত্র

শিক্ষিকার কলমের খোঁচায় অন্ধ, ১৬ বছরের ‘নষ্ট জীবন’ সামলাতে সরকারি চাকরি চান ছাত্র

বিনা দোষেই শাস্তি পেয়েছিলেন তিরুঅনন্তপুরমের আল আামিন। তখন তাঁর বয়স ন’বছর। ফার্স্ট বেঞ্চে বসা ছাত্র। ক্লাস চলাকালীন পিঠে বন্ধুর খোঁচা খেয়ে মুখ ঘুরিয়েছিলেন। ফার্স্ট বেঞ্চারের অমনোযোগ শিক্ষিকার পছন্দ হয়নি। ‘শাস্তি’ দিতে তিনি হাতের পেনটিকেই সজোরে ছুড়ে মেরেছিলেন আমিনের দিকে। পেনের নিব সোজা এসে গেঁথে যায় আমিনের বাঁ চোখে।

আমিন তখন থেকেই এক চোখে অন্ধ। সরকারি স্কুলের ছাত্র ছিলেন। স্কুলে তাঁর সঙ্গে হওয়া ঘটনাটি নিয়ে মামলাও হয়েছিল। এলাকায় প্রতিবাদ বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন অভিভাবকেরা। অবশেষে ১৬ বছর পর মামলার নিষ্পত্তি হয়েছে। ২০০৫ সালের ১৮ ডিসেম্বরের ঘটনাটির রায় গত ৩০ সেপ্টেম্বর দিয়েছে আদালত। শিক্ষিকাকে দোষী সাব্যস্ত করার পাশাপাশি তাঁকে তিন লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতেও বলা হয়েছে আমিনের পরিবারকে। যদিও আমিন এই রায়ে সন্তুষ্ট নন। তাঁর কথায়, কোনও ক্ষতিপূরণই আর তাঁর কাজে লাগবে না। কারণ ক্ষতি যা হওয়ার তা হয়েই গিয়েছে।

১৬ বছর এক চোখের দৃষ্টিতেই পড়াশোনা করেছেন আমিন। যে স্কুলে ঘটনাটি ঘটেছিল, সেই গভর্নমেন্ট হাইস্কুল অফ কান্ডালা থেকেই দশম উত্তীর্ণ হন। আমিন জানিয়েছেন, ওই ঘটনার প্রভাব শুধু শরীরে নয়, তাঁর মনের উপরও পড়েছিল। মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছিল ৯ বছরের আমিন। পড়াশোনা করতে অসুবিধা হয়েছিল তাঁর। ফলে এক সময়ের মেধাবী ছাত্র ক্রমে পরীক্ষায় খারাপ নম্বর আনতে শুরু করেন। দশম শ্রেণির পর পলিটেকনিক কলেজে ভর্তি হলেও শেষ পর্যন্ত কলেজ শেষ করতে পারেননি।

About admin