Home / রাজনীতি / নৌকায় ভোট দিতে নিষেধ আ.লীগ নেতার!

নৌকায় ভোট দিতে নিষেধ আ.লীগ নেতার!

ঢাকার ধামরাইয়ের বালিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে ভোট দেবেন না ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আব্দুল আলীম। শুধু তাই নয় ইউনিয়নবাসী সবাইকেই নৌকার বিপক্ষে ভোট দেওয়ার অনুরোধ জানান।

রোববার বিকাল ৫টায় বালিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম সূত্রাপুর গ্রামের আহাম্মদ আলীর বাড়িতে মতবিনিময় ও উঠান বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তার এ বক্তব্য ভাইরাল হয়েছে।

আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আব্দুল আলীম তার বক্তব্যে বলেন, দুই মেয়াদে নির্বাচিত বালিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও ধামরাই উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি আলহাজ্ব আহমদ হোসেন সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছেন। তার চারদিকে সন্ত্রাসী লোকজন। পুরো ইউনিয়নের মানুষ তার কাছে নির্যাতিত ও নানাভাবে হয়রানির শিকার।

সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের জন্য বালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল গণি সুমনকে দল থেকে বহিষ্কার করি। আহমদ চেয়ারম্যান তাকে দলে রাখার জন্য চরম বিরোধিতা করেও বহিষ্কার থামাতে পারেনি। সে পুনরায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে ফের আব্দুল গণি সুমনরাই তার আশপাশে ঘিরে থাকবে। আবার জুলুম নির্যাতনের শিকার হবে ইউনিয়নবাসী। তাই দল থেকে যদি তাকে নৌকা প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয় তাহলে আমিতো নৌকা প্রতীকে আমার ভোট দেবই না, আপনারাও তার বিপক্ষের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে নৌকার প্রার্থীকে পরাজিত করবেন।

তিনি বলেন, বিগত দিনের নির্বাচনে আমরাই আপনাদের ভোট দিতে দেয়নি। তাই আপনারা ভোটকেন্দ্রে গিয়ে আপনাদের ভোট দিতে পারেননি। এবার আমরাই আপনাদের ভোটের গ্যারান্টি দিচ্ছি। আপনারা কেন্দ্রে যাবেন এবং আপনাদের পছন্দের প্রার্থীকে নিজের ভোট নিজেই দেবেন। শুধু দেবেন না নৌকা মার্কার প্রার্থীকে। ইউনিয়নবাসীকে বাঁচাতে দলমত নির্বিশেষে আমাদের সবাইকে একাট্টা হয়ে কাজ করতে হবে। না হলে ওই চেয়ারম্যানের সন্ত্রাসী বাহিনীর অত্যাচার ও জুলুম-নির্যাতন থেকে আমরা কেউ বাঁচব না।

আহমদ চেয়ারম্যান তার বিরুদ্ধে আনিত সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার কোনো বাহিনী নেই। আমি একজন সাদামাটা মানুষ। আমি ইউনিয়নের প্রতিটি গ্রামে ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। তাই তারা আমার এ উন্নয়নে ঈর্ষান্বিত হয়ে আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছে। আওয়ামী লীগ সভাপতি আমার ভাতিজা বালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মজিবর রহমানকে আমার বিরুদ্ধে প্রার্থী বানানোর চেষ্টা করছে এবং তাকে নিয়েই এ মতবিনিময় ও উঠান বৈঠক করে মানুষকে বিভ্রান্ত করছে। সে একজন স্বার্থপর মানুষ।

About admin